মূল, কান্ড ও পাতা – সংজ্ঞা, অংশ ও কাজ – উদ্ভিদের বিভিন্ন অংশ

মূল, কান্ড ও পাতা – সংজ্ঞা, অংশ ও কাজ – উদ্ভিদের বিভিন্ন অংশ

মূল

  • মূলের সংজ্ঞা : আলাের বিপরীত দিকে এবং অভিকর্ষের অনুকূলে থাপ্রাপ্ত হৃণমূলের মাটির নীচে প্রসারিত অংশকে মূল বলে ।
  • শ্রেণীবিভাগ : মূল প্রধানত দু’রকমের , যথা : প্রধান মূলও গুচ্ছমূল । দ্বিবীজপত্রী উদ্ভিদের প্রধান মূল এবং একবীজপত্রী উদ্ভিদের গুচ্ছ মূল থাকে ।
  • প্রধান মূলের অংশ :
    • প্রধান মূলের চারটি অংশ আছে , যথা :
      • ( i ) মূলত্র অঞ্চল : মূলের অগ্রভাগে অবস্থিত মূলত্র সংলগ্ন অংশ । মূলত্র মূলের অগ্রভাগকে ঘর্ষণজনিত আঘাত থেকে রক্ষা করে ।
      • ( ii ) বর্ধনশীল অঞ্চল : মূলত্রের ঠিক ওপরে অবস্থিত মসৃণ অঞ্চল । এই অঞ্চলটি সব সময় বৃদ্ধি পেতে থাকে ।
      • ( iii ) মূলরােম অঞ্চল : বর্ধনশীল অঞ্চলের পরবর্তী পিছনের দিকের অংশ । এই অঞ্চলের চার পাশে অসংখ্য সূক্ষ্ম এককোষী মূলরােম থাকে । মূলরােমের সাহায্যে গাছ মাটির রস শােষণ করে ।
      • ( iv ) স্থায়ী অঞ্চল : মূলরােম অঞ্চলের ওপরের অংশ । এই অঞ্চল থেকে শাখামূল নির্গত হয় ।
  • মূলের কাজ :
    • ( i ) মূলের সাহায্যে গাছ মাটি আঁকড়ে মাটির ওপর দাঁড়িয়ে থাকে ।
    • ( ii ) মূলের সাহায্যে গাছ মাটি থেকে রস শােষণ করে ।
    • ( iii ) মূলে গাছ ভবিষ্যতের জন্য খাদ্য সঞ্চয় করে রাখে ।

কান্ড

  • কাণ্ডের সংজ্ঞা : আলাের দিকে এবং অভিকর্ষের বিপরীত দিকে বৃদ্ধিপ্রাপ্ত জ্বণমূলের ওপরের দিকের দণ্ডের মত অংশকে কাণ্ড বলে ।
  • কাণ্ডের অংশ :  কাণ্ড : ( i ) শাখা – প্রশাখা , ( ii ) পাতা , ( i ) অমুকুল , ( iv ) কাক্ষিক মুকুল ইত্যাদি ধারণ করে । কাণ্ডে পর্ব ও পর্ব – মধ্য থাকে । কাণ্ড , শাখা – প্রশাখা ও পাতা নিয়ে গঠিত উদ্ভিদের ওপরের দিকের অংশকে বিটপ বলে ।
  • কাণ্ডের কাজ :
    • ( i ) কাণ্ড শাখা – প্রশাখা , পাতা , ফুল , ফল ইত্যাদি ধারণ করে ।
    • ( ii ) কাণ্ডের মাধ্যমে মূলরােম দ্বারা শােষিত জল পাতায় যায় এবং পাতায় তৈরী খাদ্যের সারাংশ কাণ্ডের মাধ্যমে দেহের বিভিন্ন অংশে সরবরাহ করা হয় ।

পাতা

  • পাতার সংজ্ঞা : উদ্ভিদের কাণ্ড বা কাণ্ডের শাখা – প্রশাখার পর্ব থেকে উৎপন্ন অসদৃশ , চ্যাপ্টা ও সবুজ বর্ণের পার্শ্বীয় অঙ্গকে পাতা বলে ।
  • আদর্শ পাতার অংশ :  পাতাকে প্রধানত তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়। যথা : পত্রমূল, বৃন্ত ও ফলক। এদের মধ্যে ফলকের আবার পাঁচটি ভাগ রয়েছে , সেগুলি হল- কিনারা, অগ্র, মধ্যশিরা, তল ও উপশিরা।
  • পাতার কাজ :
    • ( i ) সালােকসংশ্লেষ পদ্ধতিতে খাদ্য প্রস্তুত করা ।
    • ( ii ) শ্বাসকার্যে সহায়তা করা ।
    • ( iii ) বাষ্পমােচন করা ।
    • ( iv ) ভবিষ্যতের জন্য খাদ্য সঞ্চয় করে রাখা ।
  • পাতার প্রকারভেদ :  পাতা দু’রকমের , যথা : একক পত্র ও যৌগিক পত্র ।
    • ( i ) একক পত্র : অখণ্ড বা আংশিকভাবে খণ্ডিত একটি ফলকযুক্ত পাতাকে একক পত্র বলে ( যেমন : আমপাতা ) ।
    • ( ii ) যৌগিক পত্র : পত্রফলকের কিনারা সম্পূর্ণভাবে খণ্ডিত হয়ে অনুফলক সৃষ্টি করলে ঐসব অনুফলকসহ পাতাকে যৌগিক পত্র বলে । যেমন : গােলাপ , তেঁতুল , শিমুল ইত্যাদি ।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

error: Alert: Content is protected !!