চাইল্ড সাইকোলজির ওপর শতাধিক প্রশ্নোত্তর

চাইল্ড সাইকোলজির ওপর শতাধিক প্রশ্নোত্তর

১.শিক্ষা হল মানুষের মহত্বের প্রকাশ- স্বামী বিবেকানন্দ
২.বুদ্ধি হল বিমূর্ত চিন্তনক্ষমতা- টারম্যান।
৩.মনোবিজ্ঞান হল মনের বিজ্ঞান-হোল্ডিং।
৪.মনোবিজ্ঞান হল চেতনার বিজ্ঞান- এংগেল।
৫. মনো বিজ্ঞান হল মানুষের আচরণ সম্পর্কিত বিজ্ঞান-জে.বি ওয়াটসন।
৬.একজন আদর্শ মা একশো জন বিদ্যালয় শিক্ষকের সমান।-জর্জ হারবার্ট।
৭.জ্ঞান হল সকল প্রকার সম্পদের জননী।-রুশো।
৮.আগ্রহ হল সুপ্ত মনোযোগ।- এনজেল।
৯.মনোবিদ্যা আচরণ সম্বন্দধীয় বিজ্ঞান।- ম্যাকডুগাল।
১০.শিক্ষার লক্ষ হল সুস্থ দেহে সুস্থ মন তৈরি কর।-এরিস্টটল।
১১.মন বিজ্ঞান হল আত্মার বিজ্ঞান।- এরিস্টটল।
১২.শিক্ষার লক্ষ হল দেহ ; মন ও আত্মার সর্ব শ্রেস্ট গুণ গুলির সুসামঞ্জস্য বিকাশ সাধন।- মহত্মাগান্ধী
১৩.আমি মনোবিজ্ঞান সম্মত শিক্ষা চাই।-পেশটালৎ সি।
১৪.শিক্ষার লক্ষ হল সামাজিক কার্যকারিতার জন্য যোগ্যতা অর্জন করা।- ডিইউ।
১৫.শিক্ষার লক্ষ হল শিশুর অন্তর্নিহিত সত্বার পরিপূর্ণ বিকাশসাধন।- স্বামী বিবেকানন্দ।
শিক্ষা বিষয়ে বিভিন্ন কমিশন
১)উডের ডেসপাচ–১৮৫৪.
২)হান্টার কমিশন_-১৮৮২
৩)মিত্র কমিশন — ১৯৯২
৪)স্যাডলার কমিশন-১৯১৭.
৫)হাটর্গ কমিটি—–১৯২৯.(প্রাথমিক শিক্ষা)
৬)নই তালিম—-১৯৩৭.(বুনিয়াদি শিক্ষা)
৭)সার্জেন কমিটি-১৯৪৪.
৮)রাধাকৃষ্ণণ কমিশন-১৯৪৮/৪৯. (উচ্চশিক্ষা)
৯)মুদালিয়ার কমিশন-১৯৫২.(মাধ্যমিক)
১০)হংস মেহেতা কমিটি-১৯৬১.(নারিশিক্ষা)
১১)ভক্তবতসলম কমিটি-১৯৬৩.
১২)কোঠারী কোমীশন-১৯৬৪/৬৬(প্রাক প্রাথমিক থেকে উচ্চ শিক্ষা)
১৩)জনার্দন কমিটি-১৯৯২.°
চাইল্ড সাইকোলজির ওপর শতাধিক প্রশ্নোত্তর
১.আধুনিক ভারতীয় শিক্ষার মূল লক্ষ্য কী ? উত্তরঃ মানব সম্পদ উন্নয়ন ।
২.iঅনুবর্তন বলতে কি বোঝায় ? উত্তরঃ স্বাভাবিক উদ্দীপকের সঙ্গে যদি নিরপেক্ষ উদ্দীপকটি প্রাণীর কাছে একাধিকবার হাজির করা হয়, তবে স্বাভাবিক উদ্দীপকের স্বাভাবিক প্রক্রিয়াটি বিকল্প উদ্দীপকের সঙ্গে এক হয়ে যায় । এই বিশেষ প্রক্রিয়াকেই অনুবর্তন বলে ।
৩.অপারেন্ট অনুবর্তনের প্রবক্তা কে ছিলেন ? উত্তরঃ আমেরিকার মনোবিদ B.F. Skinner.
৪.কৈশরের দুটি গুরুত্বপূর্ণ চাহিদার উল্লেখ কর । উত্তরঃ আত্মপ্রকাশের চাহিদা, দল গঠনের চাহিদা, খাদ্যের চাহিদা, যৌন চাহিদা । ।
৫.শিক্ষা হচ্ছে মানুষের অন্তর্নিহিত সত্তার পরিপূর্ণ প্রকাশ- বক্তা কে ? উত্তরঃ বিবেকানন্দ ।
৬.বাংলার নবজাগরণের অগ্রদূত কাকে বলা হয় ? উত্তরঃরাজা রামমোহন রায়কে ।
৭.কোন রাশিয়ান শরীরতত্ত্ববিদ অনুবর্তনের ওপর সর্ব প্রথম গভেষনা করেন ? উত্তরঃপ্যাভলভ ।
৮.প্যাভলভের পরীক্ষার অস্বাভাবিক উদ্দীপকটি কী ? উত্তরঃ ঘণ্টাধ্বনি ।
৯.স্পিয়ারম্যানের মানসিক ক্ষমতা সংক্রান্ত মতবাদটি কী নামে পরিচিত? উত্তর: দ্বি উপাদান তত্ব ।
১০.আধুনিক মানসিক ক্ষমতা তত্ত্বের প্রবর্তক কে ? উত্তরঃ চার্লস স্পিয়ারম্যান ।
১১.মানসিক ক্ষমতার বহু উপাদান তত্ত্বের প্রবর্তক কে ? উত্তরঃ এল,এল, থার্স্টোন ।
১২.কত খ্রিস্টাব্দে স্পিয়ারম্যান –দ্বি-উপাদান তত্ত্ব প্রকাশ করেন ? উত্তরঃ ১৯০৪খ্রিস্টাব্দে ।
Q.স্পিয়ারম্যানের মতে ক্ষমতার দুটি উপাদান কী কী ? উত্তরঃ সাধারণ মানসিক ক্ষমতা (G) বিশেষ মানসিক ক্ষমতা (S)
Q.প্রচেষ্টা ও ভুলের শিখন কৌশল বলতে কি বোঝায় ?উত্তরঃ প্রচেষ্টা ও ভুলের শিখন কৌশলের প্রবক্তা মনোবিদ থর্নডাইকের মতে যে-কোন শিখন প্রক্রিয়া বারবার প্রচেষ্টা ও ভুলের মাধ্যমে সম্ভব হয়ে থাকে । এই প্রক্রিয়ায় নির্ভুল প্রক্রিয়াটি চিহ্নিত করা হয় এবং ভুল প্রচেষ্টাগুলিকে পরিত্যাগ করা হয় ।
Q. ‘শিক্ষার’ শব্দের বুৎপত্তিগত অর্থ কী ? উত্তরঃ ‘শিক্ষার’ শব্দটি এসেছে সংস্কৃত ‘শাস’ ধাতু থেকে, যার অর্থ ‘শাসন করা’ ।
Q.শিক্ষায় ব্যক্তিতান্ত্রিক লক্ষ্য কোন মনোবৈজ্ঞানিক নীতির উপর প্রতিষ্টিত? উত্তরঃ আত্মপ্রকাশনা ও আত্মসংরক্ষণ নীতি ।
Q.‘গেস্টাল্ট’ শব্দের অর্থ কী ? উত্তরঃ সম্পূর্ণ আকার ।
কোন চাহিদার দরুন শিশু আজগুবি কাহিনী শোনা পছন্দ করে ? উত্তরঃ কল্পনা প্রবণতার জন্য ।
Q.কাদের শিক্ষার জন্য টকিং বুক বা শব্দ সৃষ্টিকারী বই ব্যবহার করা হয়?উত্তরঃ অন্ধদের জন্য ।
Q.‘এমিল’ গ্রন্থের মূল রচয়িতা কে ? উত্তরঃ রুশো ।
Q.রবীন্দ্রনাথের মতে শিক্ষার মাধ্যম কী হওয়া উচিত ? উত্তরঃ মাতৃভাষা ।
Q.রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর কত সালে রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন? উত্তরঃ ১৯২১ সালে ।
Q.স্ট্যানলি হল কৈশরকালকে কী বলেছেন ? উত্তর: ‘Adolescence is a period of great stern and strain, storm and strive’ বা, ঝ্ড়-ঝঞ্জার ও ক্লেশের কাল ।
Q.অনুবন্ধ (Correlation) কী ?উত্তর: বিভিন্ন বিষয়ের মধ্যে সম্পর্ক ।
Q.প্রাচীন ভারতের শিক্ষার লক্ষ্য কী ছিল ? উত্তরঃ মোক্ষ লাভ ।
Q.সঞ্চালকমূলক পদ্ধতির প্রবর্তক কে ? উত্তরঃ পিরিয়ার ।
Q.স্কোর কাকে বলে ? উত্তরঃ ব্যক্তির শিক্ষাগত বু্ৎপত্তির পরিমাপকে যখন সংখ্যায় বা অংকের সাহায্যে প্রকাশ করা হয়, তখন তাকে স্কোর বলা হয় ।
Q.রাশিবজ্ঞানের কোন চিহ্ন দ্বারা যোগফল বোঝানো হয় ? উত্তরঃ € ।
Q.ভারতীয় সংবিধানের সূচনা কী দিয়ে ? উত্তর: “We the People of India”…(আমরা ভারতীয় জনগণ) ।
Q.কেন্দ্রীয় প্রক্রিয়াকরণ একক কী ? উত্তর: বিট ।
কোন্ মনোবিজ্ঞানী ‘অ্যালবার্ট ‘ নামে শিশুর ওপর গবেষণা করেন ? উত্তর: ওয়াটসন ।
নারীশিক্ষা ভাণ্ডার কে গঠন করেন ? উত্তরঃ বিদ্যাসাগর ।
Q. ‘Das Capital’ বইটির লেখক কে ? উত্তরঃ কার্ল মার্কস ।
Q.মাতৃভাষাকে কে মাতৃ দুগ্ধের সঙ্গে তুলনা করেছেন ? উত্তরঃ রবীন্দ্রানাথ ঠাকুর ।
Q.কোন ফরাসি গণিতজ্ঞ কম্পিউটার আবিষ্কার করেন/Q.কম্পিউটারের জনক কে ? উত্তরঃ চার্লস ব্যাবেজ ।
Q. “আত্মানাং বিদ্ধি” কথাটির অর্থ কী ? উত্তরঃ নিজেকে জানো ।
Q.কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ কবে স্থাপিত হয় ? উত্তরঃ ১৮৩৫ সালে ।
Q.সতীদাহ প্রথা কে রদ করেন ? উত্তরঃ লর্ড উইলিয়াম বেন্টিংক রাজা রাম মোহন রায়ের প্রচেষ্টায়(১৮২৯)।
Q.রাধাকৃষ্ণাণ কমিশন কবে গঠিত হয় ? উত্তর: ১৯৪৮-৪৯ সালে ।
Q.মূক ও বধিরদের জন্য সঞ্চালক মূলক পদ্ধতির প্রবর্তক কে ? উত্তরঃ পিরিয়ার ।
‘Q.বর্ণ পরিচয়’ ও ‘বোধোদয়’ এর প্রনেতা কে ছিলেন ? উত্তরঃ ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর ।
Q.কোন শিক্ষাবিদ ঠোঁট নাড়ার কৌশল এবং ঠোঁট নাড়া দেখে ভাষা বোঝার কৌশল আবিষ্কার করেন ? উত্তরঃ পাবলো বনে ।
Q.হিস্টোগ্রাম কাকে বলে ? স্কোরগুলিকে শ্রেণীবদ্ধভাবে সাজিয়ে যে স্তম্ভ লেখচিত্র পাওয়া যায় তাকে হিস্টোগ্রাম বলে ।
Q.বিদ্যাসাগর কবে সংস্কৃত কলেজের অধ্যক্ষ নিযুক্ত হন ? উত্তরঃ ১৮৫১, ১২ জানুয়ারি ।
Q.শ্রেনি ব্যবধান কাকে বলে ? উত্তরঃ ফ্রিকোয়েন্সি বন্টনের বিভিন্ন স্কোরগুলিকে যখন নির্দিষ্ট মান অনুযায়ী ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অংশে ভাগ করে সাজানো হয়, তখন তাদের দূরত্বকে শ্রেনি ব্যবধান বলে ।
Q.ব্যক্তিগত বৈষম্য বলতে কী বোঝ ? উত্তরঃ মানুষের একে অন্যের মধ্যে জ্ঞান , বোধ, ব্যক্তিত্ব প্রবৃত্তির মধ্যে যে পার্থক্য ।
Q.ভারতীয় সংবিধানের কত নম্বর ধারায় সংখ্যালঘুদের শিক্ষার কথা বলা হয়েছে ? উত্তরঃ ৩০ নং ধারায় ।
Q. ‘Education and Man’ বইটির লেখক কে? উত্তরঃ ডিউই ।
Q.শিক্ষার লক্ষ্য বা, উদ্দেশ্য সম্পর্কে রুশোর অভিমত কী ছিল ? উত্তরঃ শিক্ষার্থীকে জীবনসংগ্রামে উপযোগী করে গড়ে তোলা ।
Q.সংযোজনবাদ তত্ত্বের দুটি উপাদান কী কী ? উত্তরঃ উদ্দিপক ও প্রতিক্রিয়া ।
সাধারণধর্মী শিক্ষার একটি বৈশিষ্ট্য উল্লেখ কর । উত্তরঃ এই শিক্ষা পুঁথিকেন্দ্রিক ।
Q.কোঠারি কমিশনের ত্রিভাষা সূত্রটি কী ? উত্তরঃ মাতৃভাষা বা আঞ্চলিক ভাষা, ইংরেজি ভাষা ও মাতৃভাষা ছাড়া অপর যেকোন একটি ভারতীয় ভাষা।
Q.কম্পিঊটারের মাধ্যমে শিক্ষার প্রথম প্রোগ্রামটির নাম হল – BASIC
Q.আরনেষ্ট জোন্স জীবন বিকাশের স্তরকে ভাগ করেছেন- চারটি ভাগে ।
Q.১৯৬৪-৬৬ সালে গঠিত কোঠারি কমিশন বা মাধ্যমিক শিক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান ছিলেন- ডি, এস, কোঠারী ।
Q.নিখিল ভারত কারিগরি শিক্ষা সমিতি স্থাপিত হয় -১৯৪৫ সালে ।
Q.ফ্রিকোয়েন্সি বণ্টনের সর্বোচ্চ স্কোর ও সর্ব নিম্ন স্কোরের মধ্যে পার্থক্যকে বলে -বিস্তৃতি ।
Q.মূখ ও বধিরদের শিক্ষার জন্য মৌখিক পদধতি (Oral Method) প্রবর্তন করেন -জুয়ান পাবলো বনে ।
Q.ব্রেইল পদ্ধতি কোন ধরনের শিক্ষার্থীদের শিক্ষণ পদ্ধতি হিসাবে ব্যবহৃত হয় ? -অন্ধ শিক্ষার্থীর ।
Q.ব্রহ্মসমাজ প্রতিষ্ঠা করেন -রাজা রামমোহন রায় ।
Q.প্রক্ষোভিক অনুবর্তনের ওপর পরীক্ষা করেন-প্যাঁভলভ ।
Q.মানবজীবনে বিকাশ শুরু হয় – মাতৃগর্ভ থেকে ।
Q.বিশেষধর্মী শিক্ষার প্রতিষ্ঠান হল- বিশ্ব বিদ্যালয়/মেডিকেল কলেজ/সঙ্গীত শিক্ষার প্রতিষ্ঠান ।
Q.সাধারণধর্মী শিক্ষার শিক্ষালয় হল – প্রাথমিক বিদ্যালয় ।
Q.রামমূর্তি কমিটি গঠন করা হয় – ১৯৯০ সালে ।
Q.‘সমাজ ছাড়া মানুষের অস্তিত্ব অকল্পনীয়’ বলেছেন –রেমন্ট ।
Q.মনবিদ্ ওয়াটসনের মতে শিশুর আবেগ – তিনটি ।
Q.ব্রেইল পদ্ধতি আবিষ্কার করেন – ১৮২৯ সালে ।
Q.শৈশবকাল হল- ৫ থেকে ১২ বছর বয়স ।
Q.স্পিয়ারম্যানের তত্বটি সম্পূর্ণভাবে-গানিতিক যুক্তির ওপর প্রতিষ্ঠিত ।
Q.প্রাচীন অনুবর্তন তত্ত্বের প্রবক্তা হলেন – প্যাঁভলভ ।
Q.কিন্ডারগার্টেন পদ্ধতির প্রবর্তক হলেন – ফ্রয়েবেল ।
Q.সঞ্চালকমূলক পদ্ধতির প্রবর্তন করেন –
Q.স্বাধীনোত্তর ভারতে সর্ব প্রথম গঠিত উচ্চ শিক্ষা কমিশনটি হল- রাধাকৃষ্ণান কমিশন ।
Q.আত্মীয়সভা প্রতিষ্ঠান করেন – রাজা রামমোহন রায় ।
Q.ডঃ লক্ষণ স্বামী মুদালিয়রের সভাপতিত্বে মাধ্যমিক শিক্ষা কমিশন গঠিত হয়েছিল – ১৯৫২-৫৩ সালে ।
Q.অবিন্যস্ত রাশিমালায় যে স্কোরটি বারবার আসে তাকে বলা হয়। বা, পুনরাবৃত্তির সংখ্যাকে কী বলা হয় – মোড ।
Q.একজন দক্ষ ব্রেইল পাঠক মিনিটে পাঠ করেন – ৬০ টি শব্দ ।
Q.কোঠারি কমিশন গঠিত হয় – ১৯৬৪ সালে ।
Q.বুদ্ধির একক হল – IQ .
Q.ব্রেইল লেখা হয়- ৬টি বিন্দু দিয়ে ।
Q.গাণিতিক গড়কে বলে- মিন ।
Q.রামমোহনকে ভারত পথিক সম্মান জানিয়েছিলেন – রবীন্দ্রানাথ ঠাকুর ।
Q. ‘Ability of Man’ নামক গ্রন্থটির লেখক হলেন- স্পিয়ারম্যান ।
Q.শিশু শিক্ষাকে খেলাভিত্তিক করতে চেয়েছেন/শিশুকেন্দ্রিক শিক্ষার জনক কে – রুশো ।
Q.বিকলাঙ্গ শিশুদের প্রধানত ভাগ করা হয়- ২ ভাগে ।
Q.বর্তমান ভারতের শিক্ষা ব্যবস্থা সংবিধানের – যুগ্ম তালিকায় অন্তর্ভুক্ত ।
Q.জাতীয় শিক্ষা কমিশন গঠিত হয়- ১৯৮৬ সালে ।
Q.ত্রিপুরায় বৃত্তিমূলক জাতীয় স্তরের একটি প্রতিষ্ঠানের নাম হল- TIT .
Q. সংযোজনবাদের প্রবক্তা হলেন- থর্নডাইক ।
Q. ‘অকুপেশন’ প্রবর্তন করেন- ফ্রয়েবেল ।
Q.ভারত পথিক বলা হয়- রাজা রামমোহন রায়কে ।
Q.‘জীবিত ও মৃতের মধ্যে যে পার্থক্য, শিক্ষিত ও অশিক্ষিত ব্যক্তির মধ্যে সেই পার্থক্য বিদ্যমান – অ্যারিস্টটল ।
Q.আধুনিক শিক্ষার জনক হলেন- রুশো ।
Q.বিশ্বব্যাপী কম্পিউটারের সুসংগঠিত সংযোগ ব্যবস্থাকে বলে- WWW.
Q.রাশিবিজ্ঞান হল- গণিতের একটি শাখা ।
Q.শিক্ষার সামগ্রিক সত্ত্বার পরিমাপকে বলা হয়- মূল্যায়ন ।
Q.নিরাপত্তার চাহিদা হল একটি – সামাজিক চাহিদা ।
Q.বেথুন কলেজ স্থাপিত হয় – ১৮৪৯ সালে ( as school,1879,as college)।
Q.শিশুর প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষার শিক্ষাকাল হল- শৈশব ।
Q.সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য কেন্দ্রীয় প্রবণতা হল- মিন ।
Q.স্কিনারের পরীক্ষা ছিল- ইদুরের ওপর ।
Q.ভারতে IGNOU স্থাপিত হয়- দিল্লীতে ।
Q.সার্বজনীন অবৈতনিক ও বাধ্যতামূলক শিক্ষার কথা বলা হয়েছে সংবিধানের – ৪৫ নং ধারায় ।
Q.বুদ্ধির গঠন সংক্রান্ত তত্ত্বের প্রবক্তা হলেন- গিলফোর্ড ।
Q.আধুনিক শিক্ষার লক্ষ্য হল- বা,শিক্ষার লক্ষ্য হওয়া প্রয়োজন – ব্যক্তি ও সমাজের উন্নয়নের মধ্যে সমন্বয়সাধন ।
Q.শিম্পাঞ্জিকে নিয়ে পরীক্ষা করেন- কোহলার ।
Q.‘‘যেখানে নারীরা সম্মানিত হয়, সেখানে ভগবান বাস করেন’’ –কথাটি বলেছেন – বিদ্যাসাগর ।
Q.কিন্ডারগার্টেন শব্দটির অর্থ – শিশু উদ্যান ।
Q.গান্ধিজি তাঁর শিক্ষা পরিকল্পনাটি প্রকাশ করেন – হরিজন পত্রিকায় ।
Q.প্রাথমিক শিক্ষাক্ষেত্রে কোন মত বৈষম্য রাখা চলবে না – এই সুপারিশ করেন – কোঠারি কমিশন ।
Q.ভারতে Polytechnic নামে কারিগরি বিদ্যালয় স্থাপিত হয়- ১৯৩৭ সালে ।
Q.“চরিত্র বলিষ্ঠ ও কর্মঠ করাই শিক্ষার প্রধান লক্ষ্য’’ – উক্তিটি করেন- রবীন্দ্রনাথ ।
Q.প্রকৃতিবাদের প্রবক্তা হলেন – রুশো ।
Q.ভারতের প্রথম শিক্ষা কমিশন- হান্টার কমিশন ।
Q.ওয়ার্ধা শিক্ষা সম্মেলন আহুত হয় – ১৯৩৭ ।
Q.মুদালিয়র কমিশন গঠিত হয়- ১৯৫২ ।
Q.সাধারণধর্মী শিক্ষা কথাটি প্রথম ব্যবহার করেন- জে, বি, কনান্ট ।
Q.নর্মাল স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন- ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর ।
Q.ভারতের প্রথম আধুনিক মানুষ বলা হয়- রাজা রামমোহন রায় কে ।
Q.গান্ধিজি বুনিয়াদি শিক্ষা চালু করেছিলেন – ১৯৩৭ সালে ।
Q.বিবেকানন্দের মতে শিক্ষার মূল লক্ষ্য – সম্পূর্ণ মানুষ তৈরি করা ।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

error: Alert: Content is protected !!